কীভাবে লম্বা হওয়া যায়।

 আপনি কী লম্বা হতে চান ?

ভূমিকা: আজকাল অনেকেই নিজের উচ্চতা বাড়ানোর জন্য শরীরচর্চা করেন। একজন মানুষ কতটুকু লম্ব হবে তা তার নিজের  ওপরে নিভার করে। জেনেটিক ফ্যাক্টার এখানে ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ ভূমিকা রাখে। বিশেষত পিটুইটারি গ্ল্যান্ড থেকে নিঃসৃত গ্রোথ হরমোন আসলে আপনার শরীরের বৃদ্ধি অব্যাহত রাখে।

সচরাচর নরীরা ১৬ ও পুরুষেরা ১৮ বছরের পর প্রাকৃতিকভাবে লম্বা হতে পারে না।তবে যাদের বয়স ২০ ও ২৫ এর মাঝামাঝি , তারা ব্যায়াম ও অভ্যাসে পরিবর্তনের মাধ্যমে কিছুটা লম্বা হতে পরে। আপনি যদি লম্ব হতে চান তাহলে আপনার ব্যায়াম ও খাদ্যাভাস পরিবর্তন আনতে হবে।

আরও পড়ুন: শিশুদের রোগ মুক্ত সকল খাবার।

সেটা কিভাবে আসুন সেটা জেনে নি। আপনার শরীর ফাঁপা থাকলে তাকে আপনাকে ছোটখাটো দেখাবে। সেজন্যে আপনার শরীর ফিট রাখতে সব সময় লম্ব হওয়ার প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে যেসব খাদ্যাভ্যাস করা জরুরি সেবিষয় নিম্নে কিছু টিপস দেওয়া হলো:

  • লিন প্রোটিন খাবেন বেশি। মুরগির মাংশ, মাছ ও দুগ্ধজাত খাবারে অনেক পরিমানে লিন প্রোটিন থাকে। এই প্রোটিন পেশি ও হাড়ের গঠনে অনেক সাহায্য করে।
  • খাদ্য তালিকায় শর্করার মাত্রা বৃদ্ধি করুন। তবে এমন শর্করা খাবেন না যা অনেক মিষ্টি। তার জন্য আপনি ভাত ও আলু খেতে পারেন।
  • দুধ, দই এর মাধ্যমে প্রচুর ক্যালসিয়াম থাকে আপনি দুধ এবং দই থেকে পারেন। 
  • মিষ্টি কুমড়া. চিনেবাদাম, গম এমন কিছু খাবার খাবেন যাতে অনেক পরিমানে জিংক পাওয়া যায়।
  • পর্যাপ্ত পরিমানে ভিটামিন ডি গ্রহন করতে হবে। মাছ ও মাশরুম খেতে পারেন। এতে আপনার ভিটামিন ডি এর অভাব পূরন হবে।

বিশ্রাম ও ঘুম

আপনাকে পরিমান মতো ঘুম ও বিশ্রাম নিতে হবে। যেমন প্রতিদিন ৮-৯ ঘন্টা ঘুমাতেই হবে। বিশেষত ২০ বছর সয়স পর্যন্ত ঘুমের সময়েই হরমোন উৎপাদিত হয়। আই বিশ্রাম নিবেন।

গ্রোথ ব্যহত এমন অভ্যাস ত্যাগ করুন

আপনার গ্রোথ যেসব কারণে প্রভাবিত হয় তা পরিহার করতে হবে এবং এলকোহল  বা ধূমপান ত্যাগ করতে হবে। নিজের পোশ্চার ঠিক রাখার বিষয়ে সচেষ্ট থাকতে হবে।

ব্যায়াম করুন

আপনার লম্বা হওয়ার জন্য ব্যায়াম একটি গুরুত্বপূর্ন বিষয়। তাই লম্বা হওয়ার জন্য সহজ কিছু ব্যায়াম আছে যেমন:-দড়ি লাফানো, সাঁতারকাটা, সাইকেল চালানো ইত্যাদিতে লম্বা হতে সাহায্য করে। কারন এই ব্যায়াম গুলো করিলে আপনার শরীরের প্রতিটি স্থানের চলাফেরা বৃদ্ধি করে।

পাঠের শেষ কথা

আমার এই আর্টিকেলে কিভাবে লম্বা হওয়ার যায় তাহার সকল ব্যাপারে বলা হয়েছে আশা করি আপনারা ভালোভাবে বুঝতে পেরেছে। আমার আর্টিকেলটি পড়ে আপনার উপকৃতি হয়েছেন, আমার আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লেগে থাকলে দয়া করে ফলো দিয়ে রাখিবেন ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

এই ওয়েবসাইটের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url